আগামী ১২ মে, ২০১৮ সারা বিশ্বে আরডুইনো ডে ২০১৮ পালিত হবে। তারই ধারাবাহিকতায় ১১ মে থেকে মাকসুদুল আলম বিজ্ঞানাগার আয়োজন করতে যাচ্ছে আরডুইনো ওয়ার্কশপ, সেমিনার এবং আরডুইনো হ্যাকাথন।

 

আরডুইনো ওয়ার্কশপ কোন স্কুলে, ম্যাসল্যাবে অথবা ভেন্যুতে হতে পারে।

আরডুইনোর উপর সেমিনার ভেন্যুতে হবে।

 

বাংলাদেশে আরডুইনো ডে ২০১৮ এর বিশেষ চমক হিসেবে থাকছে আরডুইনো হ্যাকাথন, যা বাংলাদেশে এবারই প্রথম।

 

হ্যাকাথনে যারা অংশগ্রহণ করতে পারবে: হ্যাকাথনে দুইটি ক্যাটাগরিতে থাকবে। স্কুল/কলেজের শিক্ষার্থীদের নিয়ে জুনিয়র ক্যাটাগরি এবং বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের নিয়ে সিনিয়র ক্যাটাগরি। হ্যাকাথনে মোট ২০টি গ্রুপকে আমন্ত্রণ জানানো হবে। প্রতিটি গ্রুপে সর্বোচ্চ ৪জন সদস্য থাকতে পারবে।

 

হ্যাকাথনে অংশ নিতে যা করতে হবে: অবশ্যই স্কুল,কলেজ অথবা বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থী হতে হবে। যারা এসএসসি/এইচএসসি দিয়েছো/দিচ্ছো তারা অংশ নিতে পারবে। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা শেষ হয়েছে এমন শিক্ষার্থী অংশ নিতে পারবে না।

 

যে যে বিষয়ে হ্যাকাথনে অংশগ্রহণ করা যাবে:

১। এগ্রিকালচারাল

-এগ্রো

-পোল্ট্রি

-মৌমাছি চাষ

-ক্যাটলিং

২। গ্রিন সিটি/ক্লিন সিটি

৩। পাব্লিক ট্রান্সপোর্টেশন

৪। স্মার্ট হেলথ কেয়ার

-অটিজম

৫। জলাবদ্ধতা

হ্যাকাথনে অংশগ্রহণের জন্য প্রথমে একটি কনসেপ্ট পেপার জমা দিতে হবে। একটি গ্রুপ থেকে সর্বোচ্চ ৩টি কনসেপ্ট পেপার একসাথে জমা দিতে পারবে। প্রতি সপ্তাহে নির্বাচিতদের তালিকা প্রকাশ করা হবে। যদি তালিকায় নাম থাকে, তাহলে পুনরায় কনসেপ্ট পেপার জমা দেয়া যাবে। কনসেপ্ট পেপার সিলেক্ট হলে প্রজেক্ট সামারি এবং কম্পোনেন্ট লিস্ট ৩০ এপ্রিলের মধ্যে সাবমিট করতে হবে।

বিঃদ্রঃ হ্যাকাথনে অংশগ্রহণ করতে যা যা আরডুইনো কম্পোনেন্ট লাগবে, সেগুলো মাকসুদুল আলম বিজ্ঞানাগার থেকে সরবরাহ করা হবে।

কনসেপ্ট পেপারে কি কি থাকবে: তুমি যে বিষয়ে অংশ নিতে চাও সে বিষয়ে এটা সমস্যা বের করে তা থেকে কিভাবে কি করবে এবং তার থেকে প্রাপ্ত সলুশন কি হতে পারে, তা লিখতে হবে। কনসেপ্ট পেপার ১ থেকে ২ পৃষ্ঠা হতে পারে।